কিভাবে নিজেই লিখবেন নিজের নিশ সাইটের কন্টেন্ট

বর্তমানে আমাদের দেশে আউটসোর্সিং বিশেষ করে অ্যামাজন আফিলিয়েট মার্কেটিং এর এক ধরণের জোয়ার চলছে । দিন দিন এর জনপ্রিয়তা আর পরিধি বেড়েই চলছে । আর সেই সাথে চাহিদা বাড়ছে ভাল মানের রাইটারের । কিন্তু শুনতে খারাপ লাগলেও সত্য যে, আমাদের দেশে অনেক ভাল মানের ওয়েব ডেভেলপার, SEO Specialist থাকলেও ভাল মানের রাইটারের সংখ্যাটা খুবই নগণ্য । যদিও এটার পেছনে অনেক কারন আছে কিন্তু আমি সে সব কারন নিয়ে আলোচনা না করে কিভাবে ভাল কন্টেন্ট লিখা যায় তা নিয়েই আজকে আলোচনা করব । প্রথমেই আশার বাণী দিয়ে শুরু করতে চায় তা হল,আমরা ভাল ইংরেজি না পারার কারনেই মূলত ভাল মানের রাইটার হওয়াটা আমাদের জন্য খুবই সহজ । কি অবাক হলেন কথা টা শুনে ? আসুন তাহলে দেখে নিই বাস্তবতার আলোকে । আপনি যখন ইংরেজিতে দুর্বল হবেন তখনঃ
  1. স্বভাবত আপনি বড় বাক্য লিখতে চাইবেন না এবং অল্প কথায় ভাব টা প্রকাশ করতে চাইবেন ।
  2. সহজ ও সরল বাক্য লিখতেই আপনি স্বস্তিবোধ করবেন তাই তো ?
  3. জটিল ও কঠিন শব্দ ব্যবহার করতে পারবেন না।
এবার আসুন মিলিয়ে নেই Yoast SEO Plugin ভাল কন্টেন্ট লিখার জন্য কেমন বাক্য suggest করে , · Tip 1: Clear paragraphs
  • Tip 1: Clear paragraphs
  • Tip 2: Short sentences
  • Tip 3: Limit difficult words
  • Tip 4: Use transition words
  • Tip 5: Use of Less Passive Voice
  • Tip 6: Readability Score 60 +
তারমানে সবই আমাদের যোগ্যতার সাথে match করছে শুধু শেষের কথা দুইটা(transition words, passive voice) ছাড়া তাই তো। আসুন তাহলে জেনে নেই transition words সম্পর্কে ।
ভাল ইংরেজি না জানলে কি হবে নিজের পাণ্ডিত্য প্রকাশ করার জন্য আমরা হরহামেশাই কিন্তু transition words গুলো ব্যবহার করে থাকি যেমন, However, By the way, So, Therefore, Because, first of all, also, may be, probably ইত্যাদি । মূলত SEO Friendly Content এ কমপক্ষে ৩০% sentence এ transition words গুলো ব্যবহার করার জন্য বলা হয়ে থাকে। মজার ব্যাপার হল transition words গুলো ব্যবহার করলে একই সাথে sentence গুলোর readability score বেড়ে যায় এবং user friendly হয়। যা গুগল মামা খুব পছন্দ করে । মানে আপনার পছন্দ আর গুগল মামার পছন্দ একই ।
Transition words সম্পর্কে বিস্তারিত পাবেন এখান
এবার আসি passive voice এর কথায় আসি । আরে ভাই আমরা তো Active voice টাতেই expert নয় passive লিখব কিভাবে । সুতরাং আমাদের লিখা বাক্যে ১০% passive voice হবে এটা আশা করা যায় না । Yoast SEO Plugin কিন্তু তাই বলে ১০% এর কম passive voice লিখতে।
উপরের সব গুলো কথা ঠিক থাকলে আপনার লেখার Readability Score 60 + হওয়া নিয়ে আপনার কোন মাথা ঘামাতে হবে না ।
Readability Score সম্পর্কে জানুন এখান থেকে
আরও কিছু বিষয় আছে যেগুলো একটু খেয়াল করতেই আপনি পারবেন । যেমন
  • একটা বাক্যে ২০ তাঁর বেশী শব্দ ব্যবহার না করা মানেই সেই আগের কথায় ছোট ছোট বাক্য ব্যবহার করা ।
  • একটা Sub Header এর under এ ৩০০ এর বেশী শব্দ ব্যবহার না করা ।
  • Paragraph কে খুব বেশী বড় না করে একাধিক প্যারাগ্রাফ ব্যবহার করা ।
  • Focus keyword কে Title এবং url এ ব্যবহার করা ।
  • Focus keyword কে প্রথম প্যারাগ্রাফ এর শুরুতে অন্তত প্রথম প্যারাগ্রাফ এ ব্যবহার করা ।
  • Meta Description এ Focus keyword ব্যবহার করা ।
  • Image গুলোর alt tag এ Focus keyword ব্যবহার করা । ইত্যাদি ।
এখন প্রশ্ন হল ভাই সবই তো বুঝলাম । এতেই কি আমি Native রাইটার মত লিখতে পারব ।
ভাই, রাতারাতি কি Native হওয়া যায় ? যায়না । তবে লেগে থাকলে পারবেন । মজার ব্যাপার হল আমরাও কিন্তু Native দের মতই কিছু কিন্তু কোথায় যেন একটু তফাৎ । মানে Native রাইটার অল্প কথায় বেশী ভাব প্রকাশ করেন আর বাক্যে কিছু সংক্ষিপ্ত রূপ ব্যবহার করেন । প্রথমের দিকে আমরাও কিছুটা Try করতে দোষ কি বলুন । যেমনঃ Is not কে Isn’t , You are কে You’re , Was not কে Wasn’t ইত্যাদি ।
শুরু করতে চাই কিভাবে করব ?
আপনি যখন লেখা শুরু করার কথা ভাবছেন মানে আপনার হাতে ইতিমধ্যেই Focus Keyword টা আছে । তো Focus Keyword দিয়ে প্রথমেই গুগল করেন আর ভাল ভাল কিছু url save করে রাখেন । সম্ভব হলে কিছুটা সময় Wikipedia থেকে ঘুরে আসুন । এবার আপনার লিখার একটা প্রাথমিক Structure তৈরি করে ফেলুন যেমনঃ
Introduction: 100-150 words What is বা Definition Type: 100-150 wordWhy to choose বা Use ধরনের লিখা : ২০০ wordটপ ১০ বা ৫ রিভিউজ ৫*২০০= ১০০০   শব্দ Busying Guide Tips: 200 - 300   Conclusion: 50-100 wordsআমি একটা উদাহরণ স্বরূপ দিলাম । অবশ্যই আপনার Structure নির্ভর করবে আপনার টপিস এর ধরণের উপর ।  
বানান আর গ্রামার চেক করব কিভাবে ?
বানান আর গ্রামার চেক করার জন্য আমি Grammarly premium version আর MS Word ব্যবহার করে থাকি । আপনি grammarly.com ব্যবহার করতে পারেন (premium না হলেও কোন সমস্যা নাই )।
ইউনিক লিখা চেক করব কিভাবে ?
ইন্টারনেটে অনেক ধরণের টুলস এবং ওয়েবসাইট পাওয়া যায় ইউনিক লিখা চেক করার জন্য । আমি http://duplichecker.com/ আর http://plagiarisma.net/ ব্যবহার করি । তবে কখন শুধুমাত্র একটা ব্যবহার করবেন না । আর শুধু একটা ব্যবহার করতে চাইলে http://www.copyscape.com/ ব্যবহার করতে পারেন ।
আরেকটি কথা একবারে না লিখে অল্প অল্প করে লিখুন । সময় নিয়ে লিখুন । নিজের লেখা আবার রি-চেক করুন । ধৈর্য ধরুন । তাহলেই পারবেন ।
শেষ কথা, চাকরি-বাকরি,সংসার,সামাজিক কাজ করার পর যতটুকু সময় পায় আমার নিশ সাইটের জন্য আমি নিজেই লিখি। তাই কেউ লেখার জন্য আহ্বান করবেন না । তবে আপনার যদি Web 2.0 Backlink Specially from Expired Tumblr (DA 98, PA 28+) দরকার হয় তাহলে সীমিত সময়ের জন্য দিতে পারব নাম মাত্র মুল্যে $5 সাথে ৩০০-৫০০ শব্দের ওরিজিনাল আর্টিকেল । এবং Tumblr Account, Gmail ও দিয়ে দেব যাতে পরবর্তীতে আপনি নিজে আরও Backlink নিতে পারেন । এটা কোন Promo নয় কিছু Expired Tumblr থাকায় আপনার কাজে লাগানো আর কি । এখান থেকে আমার আয় হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ যা হবে তারও কিছু অংশ বন্যা দুর্গতদের সাহায্যে দান করে দেব ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *